সিঙ্গাপুরের আদলে এগোতে চায় বাংলাদেশ | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
বিশ্বে ‘ইজি অব ডুয়িং বিজনেস’ বা সহজে ব্যবসায় সিঙ্গাপুরকে মডেল বলে মনে করা হয়। আর বাংলাদেশ সেভাবেই এগোতে চায় বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী মো. আমিনুল ইসলাম।
আজ (রোববার) রাজধানীর একটি হোটেলে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের ‘ব্রিফিং অ্যান্ড প্রেজেন্টেশন ফর সিঙ্গাপুর বিজনেস ডেলিগেশন’ বিষয়ক সেমিনারে এ কথা বলেন বিডা প্রধান। এ সময় সিঙ্গাপুরের ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরাও উপস্থিত ছিলেন।
আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘গত দশ বছরে অবকাঠামো উন্নয়নসহ বাংলাদেশের অনেক পরিবর্তন হয়েছে। এনার্জি, কমিউনিকেশন, লজিস্টিক, ইকোনোমিক জোনন্স ডেভলপমেন্ট, রিয়েল এস্টেট, আইসিটি প্রতিটি ক্ষেত্রে আমরা উন্নয়ন করেছি। বাংলাদেশে ব্যবসার পরিবেশ প্রতিনিয়ত সহজ থেকে সহজতর হচ্ছে। বিশ্ব বাজারে শতভাগ রপ্তানির সুযোগসহ আমাদের রয়েছে বিশাল দেশীয় বাজার। বিশ্বে তৈরি পোশাক শিল্পে বাংলাদেশ ২য় অবস্থানে থাকলেও লাভের দিক দিয়ে চীনের থেকে বেশি। বর্তমানে বাংলাদেশে কর্পোরেট লাভ প্রায় ১৮ শতাংশ, যা বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ।’
বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান আরও বলেন, ‘বর্তমানে আমাদের অসংখ্য তরুণ উদ্যোক্তা রয়েছে, যারা বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চায়। তাদের দরকার অর্থনৈতিক সহযোগিতা। তারা বিশ্বের বড় বড় প্রতিষ্ঠানের সাথে কাজ করতে আগ্রহী।’
অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী, বিডার পরিচালক আরিফুল হকসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।
পিডি/এনএফ/পিআর
সূত্র জাগো নিউজ

৮০টির পর্যালোচনায় ডেঙ্গুতে মৃত্যু ৪৭ : ডেথ রিভিউ কমিটি | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
সরকারি হিসাবে চলতি বছর (১ জানুয়ারি থেকে ২৫ আগস্ট পর্যন্ত) মোট ৬৩ হাজার ৫১৪ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন। এরমধ্যে ৪৭ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) রোগতত্ত্ববিদ ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ সমন্বয়ে গঠিত ডেথ রিভিউ কমিটি। যদিও বেসরকারি হিসাবে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা আরও অনেক বেশি।
স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ক্রাইসিস ম্যানেজমেন্ট সেন্টারের সহকারী পরিচালক আয়শা আখতার জানান, আইইডিসিআরের ডেথ রিভিউ কমিটির কাছে এখন পর্যন্ত মোট ১৬৯ জনের ডেঙ্গুতে মৃ্ত্যু পর্যালোচনার জন্য পাঠানো হয়। তারমধ্যে ৮০টি মৃত্যু পর্যালোচনা করে ৪৭ জনের ডেঙ্গুতে মৃত্যু নিশ্চিত হওয়া গেছে। এখনও ৮৯টি মৃত্যু পর্যালোচনার অপেক্ষায় রয়েছে।
পর্যালোচনার জন্য পাঠানো ১৬৯টি মৃত্যুর মধ্যে ঢামেক থেকে ২৩ জনের, মিটফোর্ডে একজনের, ঢাকা শিশু হাসপাতালে ১০, শহীদ সোহরাওয়ার্দী ৫, বিএসএমএমইউ ৩, মুগদা ১৫, কুর্মিটোলা থেকে দুটি পাঠানো হয়। এ ছাড়া বেসরকারি হাসপাতাল ও ক্লিনিক থেকে ৭৮টি ও বিভিন্ন বিভাগীয় হাসপাতাল থেকে ৩২ জনের ডেঙ্গুতে মৃত্যু হয়েছে উল্লেখ করে পর্যালোচনার জন্য পাঠোনো হয়।
মৃত্যু নিয়ে লুকোচুরি করা হচ্ছে-এমন অভিযোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘চলতি বছর আশঙ্কাজনকভাবে ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দিয়েছে। এ নিয়ে মানুষের মধ্যে আতঙ্কও বিরাজ করছে। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে যেন মৃত্যু না হয় সে জন্য জ্বর হলেই চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণের এবং প্রয়োজনে ডেঙ্গু হয়েছে কিনা তা জানতে পরীক্ষা করার পরামর্শ দেয়া হয়। আতঙ্কগ্রস্ত মানুষ অনেকেই ভয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়াই ডেঙ্গু পরীক্ষা করিয়েছে। অস্বীকার করার জো নেই ডেঙ্গুতে আক্রা ন্ত হয়ে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষও মারা গেছেন। কিন্তু বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে যেভাবে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়ার সংবাদ আসছে তার সবগুলোই কিন্তু ডেঙ্গুর কারণে মৃত্যু হয়নি।’
মৃত্যু কী কারণে হয়েছে তা নিশ্চিত হতেই রোগতত্ত্ব ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে গঠিত ডেথ রিভিউ টিম রোগীর মৃত্যুর পর তার হাসপাতালে ভর্তির আগে ও পরের সব পরীক্ষা-নিরীক্ষার রিপোর্ট ও চিকিৎসার ব্যবস্থাপত্র যাচাই করে দেখছেন।
স্বাস্থ্য মহাপরিচালক বলেন, ‘ভবিষ্যতে এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু জ্বরের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা প্রণয়ন ও গবেষণার জন্য ডেঙ্গুতে আক্রান্ত এবং ডেঙ্গুর কারণে মৃত্যুর সঠিক পরিসংখ্যান জানা খুবই জরুরি।’
তিনি জানান, ডেথ রিভিউ কমিটির পর্যালোচনায় দেখা গেছে, অনেক সময় চিকিৎসকরাও মৃত্যুর কারণ ডেঙ্গু লিখে দিলেও প্রকৃতপক্ষে ডেঙ্গুতে রোগীর মৃত্যু হয়নি।
এমইউ/এনডিএস/জেআইএম
সূত্র জাগো নিউজ

বাসচাপায় নিহত ১, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
গাজীপুর মহানগরীর ভোগড়া চৌধুরী বাড়ি সংলগ্ন ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে বাসচাপায় এক ব্যক্তির নিহত হওয়ার ঘটনায় বাসে আগুন এবং যানবাহনে ভাঙচুর করেছে বিক্ষুব্ধ জনতা। নিহতের পরিচয় জানা যায়নি।
রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে রাত দশটার দিকে গাজীপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে এসে বাসের আগুন নেভায়।

বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম কাওসার আহমেদ চৌধুরী জানান, ঢাকাগামী অনাবিল পরিবহনের একটি বাস অজ্ঞাত পরিচয়ের এক ব্যক্তিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ জনতা বলাকা পরিবহনের একটি বাসে অগ্নিসংযোগ করে এবং বেশকিছু যানবাহনে ভাঙচুর চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ আনে।
রাত সাড়ে দশটা থেকে ভোগড়া বাইপাস মোড় হতে ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়কে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। পুলিশ যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করতে কাজ করছে।
মো. আমিনুল ইসলাম/এমএসএইচ
সূত্র জাগো নিউজ

১৫ বছর পর জন্ম দেয়া সন্তানটিকে খুঁজে পেলেন মা | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
কুমিল্লার লাকসাম উপজেলায় গভীর রাতে মা-বাবার পাশ থেকে ঘুমন্ত অবস্থায় চুরি হওয়া মাসুদুর রহমান নামে ১১ মাস বয়সের শিশুটি ২৪ ঘণ্টা পর ফিরে পেয়েছে মায়ের কোল।
শনিবার রাত ৩টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে মনোহরগঞ্জ উপজেলার কেশতলা গ্রামের রাস্তার পাশের একটি মসজিদের পেছন থেকে কান্নারত অবস্থায় শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়।
হারানো সোনার মানিককে ফিরে পেয়ে বুকে জড়িয়ে ধরে মা-বাবা কান্নায় ভেঙে পড়েন। ১৫ বছরের দাম্পত্য জীবনের একমাত্র সন্তানকে ফিরে পেয়ে আনন্দে কেঁদে ফেলেন ওই দম্পতি।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার রাতে উপজেলার মুদাফরগঞ্জ দক্ষিণ ইউনিয়নের শ্রীয়াং দক্ষিণ পাড়ার রাজন ভূঁইয়া বাড়ির শফিকুর রহমান ও স্ত্রী সালমা বেগম শিশুটিকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন। গত শনিবার ভোরে ঘুমন্ত অবস্থায় অজ্ঞাত চোরেরা কৌশলে ঘরের দরজা খুলে মা-বাবার পাশ থেকে শিশুটিকে চুরি করে নিয়ে যায়। সকালে ঘুম থেকে উঠে সন্তানকে না পেয়ে মা-বাবা কান্নাকাটি করতে থাকেন। এ সময় বাড়ির লোকজন ছুটে আসে। আশপাশের ঘরে খোঁজাখুঁজির পর এলাকার বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করা হয়। সংবাদ পেয়ে কুমিল্লা জেলা সহকারী পুলিশ সুপার (লাকসাম সার্কেল) ইমরান রহমানসহ পুলিশ কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
ওই ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেন। শনিবার রাত ৩টার দিকে নিজ বাড়ি থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে মনোহরগঞ্জ উপজেলার কেশতলা গ্রামের রাস্তার পাশের মসজিদের পেছনে একটি শিশুর কান্নার শব্দ পেয়ে স্থানীয়দের বিষয়টি জানান মসজিদের ইমাম। আশপাশের লোকজন এসে শিশুটিকে উদ্ধার করে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ শিশুটিকে থানায় নিয়ে আসে এবং রোববার আদালতের মাধ্যমে মা-বাবার কাছে হস্তান্তর করে। এ সময় হারানো সন্তানকে ফিরে পেয়ে বুকে জড়িয়ে ধরে কান্নায় ভেঙে পড়েন বাবা-মা।
এলাকাবাসী জানায়, ১৫ বছরের দাম্পত্য জীবনে তাদের কোনো সন্তান নেই। একটি সন্তানের আশায় তারা দীর্ঘদিন ঘুরেছেন ডাক্তার-কবিরাজ, ফকির-দরবেশসহ নানা চিকিৎসালয়ে। বহু চিকিৎসার পর অবশেষে ১১ মাস আগে তাদের কোলজুড়ে একটি পুত্রসন্তান আসে। সে সন্তানটি শনিবার রাতে চুরি হয়ে যায়।
এ বিষয়ে লাকসাম থানা পুলিশের ওসি মো. নিজাম উদ্দিন বলেন, চুরি হওয়া শিশুটিকে প্রায় ১ কিলোমিটার দূরে রাস্তার পাশের একটি মসজিদের পেছন থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। রোববার আদালতের মাধ্যমে শিশুটিকে মা-বাবার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।
মো. কামাল উদ্দিন/এএম/জেআইএম
সূত্র জাগো নিউজ

৮১ স্থাপনা উচ্ছেদ, বাদ পড়েনি চারতলা ভবনও | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
নগরের মহেশখাল দখল করে গড়ে উঠা অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের প্রথম দিনে একটি চারতলা ভবনসহ ৮১টি স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। রোববার (২৫ আগস্ট) সকালে অভিযান পরিচালনা করেছেন চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (চউক) এর স্পেশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল আলম চৌধুরী।
তিনি জানান, আজ উচ্ছেদ করা স্থাপনার মধ্যে রয়েছে- ১৪টি পাকা ভবন, ১৮টি সেমিপাকা ঘর, ৩২টি টিনশেড ঘর, ১১টি কাঁচাঘর এবং ৬টি বাউন্ডারি ওয়াল। সহায়তা করছে মেগা প্রকল্পের বাস্তবায়নকারী সংস্থা বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।
চউকের নির্বাহী প্রকৌশলী ও প্রকল্প পরিচালক আহমেদ মাঈনুদ্দিন জানান, পূর্বের ধারাবাহিকতায় মহেশখালে উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে। মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে নগরের ১৩টি খালের ওপর গড়ে উঠা সব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করবে চউক।
২০১৮ সালের ৯ এপ্রিল চট্টগ্রাম শহরের জলাবদ্ধতা নিরসনে গৃহীত মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সঙ্গে চউকের সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর হয়। এ চুক্তির আওতায় সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোর এ প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন করছে। এ লক্ষ্যে খালের উভয় পাশে রিটেইনিং ওয়াল, রাস্তা নির্মাণ ও নিচু ব্রিজগুলো ভেঙে উঁচু করার কাজ চলছে। পাশাপাশি খাল থেকে ময়লা পরিষ্কার কার্যক্রমও অব্যাহত আছে।
এমআরএম/জেআইএম
সূত্র জাগো নিউজ

মোটরসাইকেলের ধাক্কায় প্রাণ গেল গ্রাম পুলিশের | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
হাটিকুমরুল-বনপাড়া মহাসড়কের সিরাজগঞ্জের সলঙ্গায় গোজা ব্রীজে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় বাইসাইকেল আরোহী বিজন কুমার দাস (৩৮) নামের এক গ্রাম পুলিশ নিহত হয়েছেন।
শনিবার (২৪ আগস্ট) রাত ১০টায় বগুড়ার শহীদ জিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। বিজন কুমার ৮নং সলঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ ও সলঙ্গা ঋুষি পাড়ার যোগেন দাসের ছেলে।
৮নং সলঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান সানোয়ার হোসেন জানান, শনিবার বিকেলে ইউনিয়ন পরিষদে ডিউটি শেষ করে বিজন কুমার বাইসাইকেল যোগে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় গোজা ব্রীজ এলাকায় পৌঁছালে পিছন থেকে একটি মোটরসাইকেল জোরে ধাক্কা দিলে মারাত্মভাবে আহত হন তিনি।
স্থানীয়রা উদ্ধার করে তাকে বগুড়ার শহীদ জিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টার দিকেতার মৃত্যু হয়। এ ব্যাপারে হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানায় মামলা করা হয়েছে।
ইউসুফ দেওয়ান রাজু/এমএসএইচ
সূত্র জাগো নিউজ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ : মির্জা ফখরুল | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। রোববার (২৫ আগস্ট) সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিব এ অভিযোগ করেন।
মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার রোহিঙ্গা ইস্যুর সমাধানে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছে। গত দুই বছর ধরে রোহিঙ্গারা এ দেশে এসেছে। এ দুই বছরে সরকার এতোই ব্যর্থ হয়েছে যে, দিনক্ষণ তারিখ ঠিক করেও গত তিনদিন আগে সাড়ে তিন হাজার রোহিঙ্গাকে ফেরত পাঠাতে পারেনি।
সরকারের ‘দুঃশাসনে’ দেশের শাসনব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, আজকে সারাদেশে তারা (সরকার) একটা লুটের রাজত্ব কায়েম করেছে। যেখানেই যাবেন সেখানেই দেখবেন আওয়ামী লীগের লোকেরা লুটপাট ছাড়া আর কোনো কিছু করছে না। যার ফলে আজকে সমস্ত কিছু ভেঙে পড়ছে, শাসন ব্যবস্থা ভেঙে পড়ছে। আজকে দুঃশাসন সমগ্র দেশে একটা অসহ্য, অস্বাভাবিক দুঃসহনীয় পরিবেশ বিরাজ করছে।
ফখরুল বলেন, এ সরকার খুব সুপরিকল্পিতভাবে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করছে। শুধু গণতন্ত্র নয়, রাজনীতিকেই ধ্বংস করছে। ১/১১-তে ষড়যন্ত্র-চক্রান্ত হয়েছিল বি-রাজনীতিকরণের -সেই ধারাই এখন চলছে। পুরোপুরিভাবে রাজনৈতিক দলগুলোকে নিশ্চিহ্ন করে, প্রতিপক্ষকে নিশ্চিহ্ন করে তাদের (আওয়ামী লীগ) একদলীয় শাসন ব্যবস্থাকে প্রতিষ্ঠা করা।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, এ দেশে বিচার ব্যবস্থা বলতে কিছু নেই, আইনের শাসন বলতে কিছু নেই, ন্যায়-নীতি কোনো কিছুই নেই। এখন শুধু একদল একনীতি, একটাই প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে সেটা হচ্ছে- আওয়ামী লীগ।
এ অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে আন্দোলন গড়ে তুলতে নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, সংগ্রামের কোনো বিকল্প নেই, ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। আজকে গোটা জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে, সকল রাজনৈতিক দলকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে, দল-মত নির্বিশেষে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়েই এ দানবকে সরাতে হবে। তা না হলে ৭১ সালে যে চেতনা নিয়ে আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছিলাম সেই চেতনা ধূলিসাৎ হয়ে যাবে।
সরকারের ব্যর্থতা তুলে ধরে মির্জা ফখরুল বলেন, এ সরকার সর্বত্রভাবে ব্যর্থ হয়েছে। তারা অর্থনীতি ধ্বংস করেছে, তারা আজকে শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করেছে, তারা স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে ধ্বংস করেছে। আপনারা দেখুন ডেঙ্গু কী আকার ধারণ করেছে, হাজার হাজার মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হচ্ছে। সম্পূর্ণ এ সরকারের অব্যবস্থা ও তাদের অযোগ্যতার কারণে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মানুষ মারা যাচ্ছে।
তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের বক্তব্যের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, কয়েকদিন আগে তথ্যমন্ত্রী বলেছেন, বিএনপি একটি খুনির দল। উনি ভুলে গেছেন যে, উনারা ১৯৭২ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকেই এ খুন শুরু করেছিলেন। সেদিনও তারা রক্ষীবাহিনী তৈরি করে তাদের নেতাকর্মীরা বিরোধীদলের হাজার হাজার নেতাকর্মীকে খুন করেছে। সেদিন সিরাজ শিকদারকে খুন করা হয়েছিল -এ রকম অসংখ্য নেতাকর্মী সাধারণ মানুষকে হত্যা করা হয়েছিল।
বিএনপির সাবেক মহাসচিব ব্যারিস্টার আবদুস সালাম তালুকদারের ২০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় প্রেস ক্লাবের মিলনায়তনে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে ‘ব্যারিস্টার সালাম তালুকদার স্মৃতি সংসদ’। সাবেক মহাসচিব আবদুস সালাম তালুকদারের কর্মময় জীবন তুলে ধরে তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বিএনপি বর্তমান মহাসচিব।
সংগঠনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এমাজ উদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে ও সদস্য শামসুজ্জামান মেহেদীর পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, কেন্দ্রীয় নেতা সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সিরাজুল হক, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, রশিদ উজ-জামান মিল্লাদ, নিলোফার চৌধুরী মনি, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, হাবিবুর রশীদ হাবিব, ওয়ারেস আলী মামুন, সুজাত আলী, প্রয়াত নেতার জামাতা এম হাসান ও ভাতিজী সাদিয়া হক বক্তব্য রাখেন।
কেএইচ/আরএস/পিআর
সূত্র জাগো নিউজ

তামিমের জায়গায় জহুরুল না সাইফ? | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
কন্ডিশনিং ক্যাম্প শেষে এখন চলছে পুরোদস্তুর ক্রিকেট প্র্যাকটিস তথা স্কিল ট্রেনিং। ক্যাম্পে ডাক পাওয়া ৩৫ জনের মধ্যে ১০ জন অবশ্য বাংলাদেশ ইমার্জিং দলের হয়ে লঙ্কান ইমার্জিং দলের বিপক্ষে সিরিজে ব্যস্ত এবং এখন খুলনায় প্রথম চার দিনের ম্যাচ খেলার প্রহর গুনছেন।
তার মানে প্রথম টেস্টের আগে এখন শেরে বাংলায় অনুশীলন করছেন জনা পচিশেক ক্রিকেটার। কিন্তু ভাবার কোন কারণ নেই যে, তারা সবাই টেস্ট দলে ডাক পাবার দাবিদার। এর মধ্যে কজন টি-টোয়েন্টি স্পেশালিস্ট পারফরমারও আছেন। কাজেই একসঙ্গে প্র্যাকটিস করলেও ঐ বহরের সবাই টেস্ট দলে থাকবেন না।
এদিকে দেখতে দেখতে আফগানিস্তানের সঙ্গে টেস্ট শুরুর সময়ও ঘনিয়ে এলো। আগামী ৫ সেপ্টেম্বর থেকে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে শুরু সাকিব বাহিনীর সঙ্গে আফগানদের একমাত্র টেস্ট। ৩০ আগস্ট রাজধানীতে পা রাখবে আফগানরা। টেস্ট শুরুর আগে ১ সেপ্টেম্বর এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে দুদিনের প্রস্তুতি ম্যাচও খেলবে সফরকারীরা।
শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটি শেষে শনিবার থেকে এদিকে শেরে বাংলায় শুরু হয়েছে টাইগারদের ব্যাটিং ও বোলিং স্কিল ট্রেনিং। এ সপ্তাহের পুরোটা চলবে ঐ স্কিল ট্রেনিং। যতদূর জানা গেছে, ৩১ আগস্ট চট্টগ্রাম যাবে টেস্ট দল। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু জানিয়েছেন, ৩০ আগস্টের ভেতরেই দল চূড়ান্ত হয়ে যাবে।
তামিম ইকবাল আগেই আফগানিস্তানের সঙ্গে একমাত্র টেস্ট এবং পরে জিম্বাবুয়েকে সঙ্গে নিয়ে বাংলাদেশের তিন জাতি টি-টোয়েন্টি আসরে বিশ্রাম চেয়ে ছুটিতে। তাই তার জায়গাটাই শুধু খালি। এছাড়া আর সবাই আছেন।
কোন বড় ধরনের ইনজুরিও নেই কারো। তাই সে অর্থে নির্বাচক ও টিম ম্যানেজমেন্টের নতুন বিকল্প খোঁজার তাড়া নেই তেমন। দলে তাই নতুন কারও অন্তর্ভুক্তির সম্ভাবনা খুব কম। তারপরও ওপেনিংয়ে তামিম ইকবালের জায়গায় অভিজ্ঞ জহুরুল ইসলাম অমি না হয় এইচপির সাইফ হাসানের দলভুক্তির কথা শোনা যাচ্ছে।
এআরবি/এসএএস/জেআইএম
সূত্র জাগো নিউজ

সোমবার তাপমাত্রা বাড়বে | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের অধিকাংশ জায়গায় বৃষ্টিপাত ছিল না। যেসব জায়গায় বৃষ্টিপাত হয়েছে, সেটার বড় অংশেই অল্প বৃষ্টি হয়েছে। গত দুই-তিনদিনের তুলনায়ও রোববার (২৫ আগস্ট) দেশে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ কমেছে। অধিকাংশ জায়গায় বেড়েছে তাপমাত্রা। সোমবারও (২৬ আগস্ট) দেশে তাপমাত্রা সামান্য বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতর।
রোববার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে এ তথ্য জানানো হয়েছে।
পূর্বাভাসে আরও বলা হয়েছে, ভারতের ঊড়িষ্যা উপকূল ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত লঘুচাপটি মৌসুমী বায়ুর অক্ষের সাথে মিলিত হয়েছে। আর মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে তা মাঝারি অবস্থায় বিরাজ করছে।
খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারী ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারী ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।
রোববার সন্ধ্যা ৬টার আগের ২৪ ঘণ্টায় দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে তাড়াশে, ৪৩ মিলিমিটার। ঢাকায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ১ মিলিমিটার। ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন ছিল ২৫ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। দেশে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৪ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস টেকনাফে। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিলে সিলেটে ৩৫ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।
সোমবার ঢাকায় সূর্যোদয় ভোর ৫টা ৩৬ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৬টা ২৩ মিনিটে।
পিডি/এনএফ/পিআর
সূত্র জাগো নিউজ

বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্যে থাকলেও জিয়ার বিচার হয়নি | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার:
বঙ্গবন্ধু হত্যার নেপথ্যে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান থাকলেও তার বিচার হয়নি বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে রোববার এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ সব কথা বলেন তিনি। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদাতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে এ আলোচনা সভার আয়োজন করে বাংলাদেশ আইন সমিতি।
মন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু হত্যার একাংশের বিচার হয়েছে। যারা প্রত্যক্ষভাবে হত্যায় অংশগ্রহণ করেছিল শুধু তাদের বিচার করা হয়েছে। যারা হত্যার পেছনে থেকে মদদ দিয়েছিল তাদের কোনো বিচার হয়নি। যেমন ঢাকার এয়ারপোর্টে স্বর্ণ চোরাচালানে যারা স্বর্ণ বহন করে শুধু তাদের আটক করা হয়। কিন্তু যারা দুবাই বসে ব্যবসা করে তাদের ধরা হয় না। আমরা এখানে দাবি করি অচিরেই ট্রুথ কমিশন গঠন করে ঘটনার নেপথ্যে (বঙ্গবন্ধু হত্যা) যারা আছে তাদেরও বিচার করতে হবে।’
জিয়াউর রহমানকে ট্রুথ কমিশন গঠনের মাধ্যমে মরণোত্তর বিচারের আওতায় আনা উচিত বলেও মন্তব্য করেন মন্ত্রী।
খুনিদের বিচার ঠেকাতে জিয়াউর রহমান ইনডেমনিটি আইন করেছিলেন উল্লেখ করে মোজাম্মেল হক বলেন, ‘যারা বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি তারা জিয়াউর রহমানের দায় থাকার কথা স্বীকার করেছেন।’
আলোচনা সভায় বাংলাদেশ আইন সমিতির সভাপতি মোল্লা মো. আবু কাওসারের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য দেন গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী শ.ম. রেজাউল করিম, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী মো মাহবুব আলী, বিচারপতি একেএম শাহিদুল হক, বিচারপতি মো. জাহাঙ্গীর হোসেন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি মো. রেজওয়ানুল হক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী।
এএসবি/এনডিএস/জেআইএম

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে
পারেন আপনিও –
[email protected]

সূত্র জাগো নিউজ