আসামিরা প্রকাশ্যে, বিচার পাবে কী শারমিনের পরিবার? | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকাশিত: ১০:৪২ অপরাহ্ণ, ২৫ আগস্ট ২০১৯

‘মা/ভাইয়া আমাকে ক্ষমা করে দিও। আমি বাঁচতে চেয়েছিলাম, কিন্তু নিষ্ঠুর পৃথিবীর মানুষেরা আমাকে বাঁচতে দিল না। আমার মৃত্যুর জন্য দায়ী তারেক, তারেকের মা ও তার বোন কনিকা। আমার মৃত্যুর প্রতিশোধ তোমরা নিও।’
বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষে ইভটিজিংয়ের শিকার হয়ে এই চিঠি লিখে আত্মহত্যা করেছিল চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার ফরিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী শারমিন আক্তার মিনু।
ঘটনার ৪ বছর অতিবাহিত হলেও জাল জালিয়াতির মাধ্যমে আইনের চোখ ফাঁকি দিয়ে বহাল তবিয়তে রয়েছে মামলার মূল আসামি মমিন হোসেন তারেকসহ অন্যরা। পুলিশের পক্ষপাতদুষ্ট অভিযোগ গঠনের কারণে দফায় দফায় তদন্ত কার্যক্রম পরিবর্তন ও আসামি পক্ষের হুমকি-ধমকির ফলে সন্তান হারানোর বিচার চেয়ে ভীতিকর জীবন কাটাতে হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছে বাদী পরিবার। এখনো বিচার না হওয়ায় হতাশ শারমিনের মা শাহিদা বেগম। তবে তিনি এখনো রয়েছেন ন্যায়বিচার পাওয়ার আশায়।
সরেজমিনে গত মঙ্গলবার হাঁড়িয়া গ্রামে নিহত শারমিনের বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, সুনশান নীরবতার মাঝেই চলছে শারমিনের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকীর আয়োজন। প্রিয়জন হারানো স্বজনরা ৪ বছরেও ভুলতে পারেননি সেদিনের দুঃসহ স্মৃতি। সাংবাদিকদের দেখেই দীর্ঘদিনের চাপা কান্না বাঁধ ভেঙ্গে উপচে পড়ে তাদের। পাশে উপস্থিত এলাকার ২/১ জন আড়ালে গিয়ে অশ্রু সংবরণ করছে।
কথা হয় শারমিনের মায়ের সাথে। সংবাদকর্মীদের দেখেই তিনি কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। শারমিনের ডাক নাম মিনু। কান্না জড়িত কণ্ঠে মিনুর মা বলেন, আমি রাস্তায় বের হই না, স্কুল ড্রেস পরা মেয়েদের দেখলে আমার কলিজা ফেটে যায়। বিকেল হলেই মনে হয় দলবাঁধা মেয়েদের সারি হতে ছুটে এসে স্কুল ব্যাগ খাটে ছুঁড়ে মিনু আমায় ডাকছে- ‘মা, খেতে দাও’ সে আশায় আজো তার পথ চেয়ে আছি। আমি একটু বিচার চেয়েছি, তাও আজ এটা, কাল ওটা। দোষীদের শাস্তি দেখলে আমার মিনুর আত্মা শান্তি পাবে। যাদের কারণে আমার মেয়ে পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলো আমি তাদের বিচারের আশায় রয়েছি।
মিনুর বড়ভাই প্রবাসী শাহজাহান সোহাগ মোবাইল ফোনে জানান, আমরা ৫ ভাইয়ের একমাত্র বোন মিনু। অনেক স্বপ্ন নিয়ে তাকে বিদ্যালয়ে পাঠিয়েছিলাম মানুষের মতো মানুষ বানাতে। সেই বিদ্যালয়ের শ্রেণিকক্ষ ও ক্যাম্পাসে নিষ্ঠুর পৃথিবীর মানুষরূপী কিছু অমানুষের অমানবিক আচরণের কারণে পৃথিবী ছাড়তে হয় তাকে। চার বছরেও মায়ের চোখের জল শুকায়নি, ন্যায্য বিচার পাওয়ার আশায় প্রতিটি প্রহর গুণছেন তিনি দীর্ঘশ্বাস নিয়ে। আর অপরাধীরা দিব্যি চোখের সামনে ঘুরাফেরা করছে। চার বছরে মামলা তুলে নিতে অনেক অনুরোধ, হুমকি ও প্রলোভন পেয়েছি অথচ শুণ্য বুকের হাহাকার মিটানোর জন্য এতোটুকু সান্ত্বনা দেবার মতো কাউকে পাইনি।
জানা যায়, উপজেলার হাড়িয়া গ্রামের পন্ডিত বাড়ির প্রবাসী মোহাম্মদ আলীর মেয়ে শারমিন আক্তার মিনু। তাকে প্রায়ই প্রেম নিবেদন ও উত্যক্ত করতো সহপাঠী একই ইউনিয়নের সংহাই গ্রামের প্রবাসী আবু তাহেরের ছেলে তারেক। তারেক কোনোভাবে মিনুকে প্রেমে রাজি করতে না পেরে মা রূপবান বেগম ও বোন কনিকাকে সহযোগিতা করতে বলে। এ ব্যাপারে ঘটনার ৩ দিন আগে ২০১৫ সালের ১৭ আগস্ট সোমবার বিকেলে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. ইসমাইল হোসেনের নিকট শারমিনের ছোট ভাই নয়ন মৌখিক ভাবে একটি অভিযোগ দেয়। ২০ আগস্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের উপস্থিতিতে ইংরেজি ক্লাস চলাকালে রূপবান বেগম ক্লাসের ভেতরে ঢুকে মিনুকে দাঁড় করায়। পরে তার ছেলের সাথে পালিয়ে গিয়ে বিয়ে করার পরামর্শ দেয়। এ প্রস্তাব মিনু প্রত্যাখ্যান করলে তারা মিনুকে অকথ্য ভাষায় বিভিন্ন প্রকার গালিগালাজ করে। পরে বিরতির সময় রূপবান বেগমের সাথে তার মেয়ে কনিকা এসে আরও অশ্লীল ভাষা ব্যবহার করে। ওই সময় তারেক মিনুকে চড় মারে ও মুখে থুতু দেয়। উপস্থিত অন্যান্য সহপাঠীদের সামনে অপমানিত হয়ে রাগে ক্ষোভে স্কুল থেকে ছুটি নিয়ে বাড়িতে যায় মিনু।
এরপর তাদের বসত ঘরের নিচ তলায় ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে সে। পরিবারের সদস্যরা তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। মিনুর আত্মহননের পর তার ঘর হতে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করে পুলিশ। যাতে লেখা ছিলো- ‘মা, ভাইয়া, আমাকে ক্ষমা করে দিও। আমি বাঁচতে চেয়েছিলাম কিন্তু নিষ্ঠুর পৃথিবীর মানুষেরা আমাকে বাঁচতে দিল না। আমার মৃত্যুর জন্য দায়ী তারেক, তারেকের মা ও তার বোন কণিকা। আমার মৃত্যুর প্রতিশোধ তোমরা নিও।’
ঘটনার পর মিনুর ভাই শাহাবুদ্দিন নয়ন ৫ জনের নাম উল্লেখ করে শাহরাস্তি মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় কেবল অভিযুক্ত তিনজনের মধ্যে বখাটে তারেককে গ্রেফতার করা হয়। মামলার বাদি শাহাবুদ্দিন নয়ন জানান, ধূর্ত তারেকের পরিবার অর্থের বিনিময়ে বয়স কমিয়ে ভুয়া জন্মসনদ তৈরি করে। তাতে তারেকের বয়স দেখানো হয় ১৭ বছর ৫ মাস ১২ দিন। অথচ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর জেনারেল হাসাপাতালের জুনিয়র কনসালটেন্ট (রেডিওলজি) ডা. এম মাঈন উদ্দিনের মেডিকেল রিপোর্টের তথ্য অনুযায়ী তারেকের বয়স ২০ বছর। এই ভুয়া জন্মসনদ দিয়ে তারেককে অপ্রাপ্তবয়স্ক দেখিয়ে ৩২ দিন কারাবাস শেষে প্রতারণামূলক তথ্য উপস্থাপনের মাধ্যমে তার জামিন নেয়া হয়। কিন্তু মিনুর আত্মহত্যায় প্রধান প্ররোচনাকারী বখাটে তারেকের মা রূপবান বেগম ও তার বোন কনিকাকে আজও আটক করা হয়নি।
মিনুর আত্মহননের ৩ দিন পর লিখিত ভাবে প্রতিবেদন দাখিল করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সিদ্দিকুর রহমান পাটওয়ারী। তার প্রতিবেদনে ইভটিজিংয়ের কোন ঘটনা উল্লেখ করা হয়নি। ২৩ আগষ্ট ২০১৫ তৎকালীন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আলী আশ্রাফ খানের নিকট ওই প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনে তারেক, তার মা রূপবান বেগম ও বোন কনিকার অপরাধ আড়াল করে বিদ্যালয়ে ইভটিজিংয়ের কোন ঘটনা ঘটেনি এবং শারমিন ও তার অভিভাবক বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের নিকট ইভটিজিং অথবা কোন উশৃঙ্খল আচরণের জন্য তারেকের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে কোনো লিখিত অভিযোগ দেয়নি মর্মে উল্লেখ করা হয়।
ভিকটিমের পরিবার আরও জানায়, দক্ষিণ সূচীপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে বখাটে আচরণের দায়ে বহিষ্কার হওয়া তারেককে কোন প্রকার ছাড়পত্র (টিসি) ছাড়াই এ বিদ্যালয়ে ভর্তি করে প্রধান শিক্ষক। ওই ঘটনায় অপরাধীকে বিদ্যালয় হতে বহিষ্কার না করে তার শিক্ষাজীবন অক্ষুণ্ণ রাখতে প্রধান শিক্ষকের প্রচেষ্টায় লাকসামের একটি বিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়ার সুযোগ করে দেয়া হয়। জাতির বিবেক খ্যাত শিক্ষকের অপরাধীদের সাথে এমন সখ্যতা ও অপরাধী পরিবারকে বাঁচাতে তার এই কর্মকাণ্ডে একজন শিক্ষকের পেশাদারিত্ব ও দায়বদ্ধতা নিয়ে নানা বিতর্কের জন্ম দিয়েছে।
ওই মামলায় শাহরাস্তি মডেল থানার তৎকালীন এসআই মো. নিজাম উদ্দিন ২০১৫ সালের ২ ডিসেম্বর তারেক ও তার মা রূপবান বেগমকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগ পত্র প্রেরণ করে। এতে মামলা থেকে ৩ জন আসামির নাম বাদ দেয়া হয়। তারা হলো- মৃত আব্দুল জলিলের পুত্র তারেকের বন্ধু আবু রায়হান, ছালেহ আহমেদের পুত্র মো. শামীম হোসেন ও তারেকের বোন নুরুন্নাহার আক্তার কনিকা। এরপর গত ৩১ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে অভিযোগ পত্রে তদন্ত কর্মকর্তা পক্ষপাতদুষ্ট তদন্ত করেছেন মর্মে তার দাখিলকৃত চার্জশীটের উপর নারাজি আবেদন করেন বাদিপক্ষ।
এরপর গত ১৬ মার্চ ২০১৬ তারিখ নারাজি আবেদন মঞ্জুর হয়ে মামলাটি বিজ্ঞ আদালত সিআইডিতে প্রেরণ করে। সিআইডি পুনঃতদন্ত শেষে গত ৬ সেপ্টেম্বর ২০১৬ আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিলে আদালত মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) আবারো তদন্তের নির্দেশ দেন। পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ২০১৭ সালের নভেম্বরে বর্তমানে মামলাটি দুভাগে দুটি চার্জশিট প্রদান করে (যা ৬.১৮ ও ৯.১৮)। এতে তারেক, তার মা রূপবান বেগম ও বোন কণিকাকে আসামি করা হয়। তিন আসামির বিরুদ্ধে আদালত কর্তৃক চার্জগঠন হয়েছে। যা বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে।
মিনুর ভাই মামলার বাদি শাহাবুদ্দিন জানান, জামিনে এসে তারেক ও তার মা তাকে প্রতিনিয়ত তাদেরকে হুমকি দিয়ে আসছে। আদালতে মিথ্যা তথ্য দিয়ে তারেক জামিন নিয়েছে, তার মা ও বোন প্রকাশ্যে ঘুরছে। তারা জনসম্মুখে বলে বেড়াচ্ছে, মামলা শেষ হয়ে গেছে, কোনো কিছুই হবে না।
শাহাবুদ্দিন আরও জানান, নিজের বোন হারানোর ঘটনার বিচার চেয়ে এখন নিজের জীবন নিয়ে নিজেই শঙ্কায় রয়েছি। ইভটিজিং ও যৌন হয়রানি প্রতিরোধে সরকার ব্যাপক কর্মসূচী গ্রহণ করলেও জামিনে এসে বখাটে তারেক ও অন্য আসামিরা প্রকাশ্যে ঘোরাফেরা ও বাদি পরিবারের সদস্যদের মামলা তুলে নেয়ার হুমকি মিনুর মায়ের বিচার পাওয়ার আশা ক্ষীণ করে তুলেছে। ওই ঘটনায় দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছে স্থানীয়রা।
প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের ২০ আগস্ট শাহরাস্তি উপজেলার আয়নাতলী ফরিদ উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্রী শারমিন আক্তার মিনু বিদ্যালয়ে বিরতির সময় শ্রেণিকক্ষে সহপাঠী বখাটে তারেকের দ্বারা উত্ত্যক্তের শিকার হয়। পরবর্তীতে উত্ত্যক্তকারী তারেকের পরিবারের সদস্যদের হাতে আবারো নাজেহাল হয়ে ক্ষোভে-অপমানে আত্মহত্যা করে শারমিন।
এআইআর/ডিএ

ক্যাটস আইয়ে টপস-শার্টের নতুন সংগ্রহ | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকাশিত: ১০:৪৩ অপরাহ্ণ, ২৫ আগস্ট ২০১৯

রোদ-বৃষ্টির এই মৌসুমে আড়ম্বরের পাশাপাশি চাই আরাম। তবে এসময়ের ফরমাল এবং স্ট্রিট ফ্যাশনে সৃষ্টি হোক নান্দনিক স্টাইল স্টেটমেন্ট, যা মিলবে ক্যাটস আইয়ের প্রতিটি স্টোরে।
মূলত নিজেকে পরিপাট রাখার জন্যই তারুণ্যের ট্রেন্ড-নির্ভর এসব পোশাক এনেছে ক্যাটস আই। এই গরমে সস্তি মিলবে ক্যাজুয়াল শার্ট, পলো, চিনোস, ডেনিম আর ওমেন টপসের নতুন সংগ্রহগুলোতে।
প্রিন্টের পাশাপাশি সবকিছুতেই প্যাটার্ন এবং ফেব্রিকে বৈচিত্র্যতা থাকছে। শার্টের প্রিন্ট বা রঙ, শার্টের কলার, শোল্ডার ফিট বা কাফ বা ফ্রন্ট লুকেও থাকছে আধুনিকতা। ডেনিম প্যান্টের বিশেষ কালেকশন, গরমে দিবে আরাম। গুণগতমান বাড়িয়েও পণ্যের দাম আরো সাশ্রয়ী করা হয়েছে, যা পুরোটাই ক্রেতা বান্ধব। এছাড়া অনলাইন স্টোর এবং এলিফ্যান্ট রোডের ডিসকাউন্ট শপে থাকছে অর্ধেক দামে পণ্য কেনার সুযোগও।
ক্যাটস আইয়ের নতুন পণ্যের ফটোশ্যুট এবং ভিডিও উপস্থাপনাও মিলবে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে। পণ্য নিয়ে বিস্তারিত জানা যাবে ক্যাটস আই ফেসবুক পেইজ এবং ওয়েবসাইটে। অনলাইন স্টোরের ঠিকানা : catseye.com.bd
এমআর/এনই

গৃহবধুকে গাছে বেঁধে নির্যাতন: ৪ আসামির জামিন নামঞ্জুর | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকাশিত: ৯:১৪ অপরাহ্ণ, ২৫ আগস্ট ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

শেরপুরের নকলায় ডলি খানম (২২) নামে অন্তঃসত্ত্বা এক গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের চাঞ্চল্যকর মামলায় হাজতি ৪ আসামির জামিনের আবেদন ফের নামঞ্জুর হয়েছে।
রবিবার (২৫ আগস্ট) দুপুরে উভয় পক্ষের দীর্ঘ শুনানী শেষে জেলা ও দায়রা জজ মোঃ মুজিবুর রহমান তাদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেন।
এরা হচ্ছেন নির্যাতিতা গৃহবধূর ভাসুর আবু সালেহ (৫২), সলিমুল্লাহ (৪৪), জা লাখী আক্তার (৩৪) ও তাদের আত্মীয় তোফাজ্জল হোসেন (৫৫)। একইসাথে আদালত ইসমাইল হোসেন (২০) নামে এক আসামিকে পুলিশ রিপোর্ট দাখিল পর্যন্ত অন্তবর্তীকালীন জামিন মঞ্জুর করেছেন।
এ নিয়ে এ মামলায় এক নারী আসামিসহ এখন পর্যন্ত ২ আসামির জামিন হলো। অন্যদিকে ওই মামলায় এখনও পলাতক রয়েছেন সেনাসদস্য নেছার উদ্দিন, স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর রূপালী বেগম ও তার স্বামী আমিরুল ইসলাম।
দায়রা আদালতে আসামিদের জামিন নামঞ্জুরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভারপ্রাপ্ত পিপি এডভোকেট অরুন কুমার সিংহ রায়। অন্যদিকে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলমগীর হোসেন বলেন, মামলার তদন্তের ক্ষেত্রে অনেকটাই অগ্রগতি হয়েছে। পলাতক আসামিদের গ্রেফতারেও চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
উল্লেখ্য, গত ১০ মে নকলা উপজেলার কায়দা গ্রামে জমিসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ওই অন্ত:স্বত্ত্বা গৃহবধূকে গাছে বেঁধে বর্বরোচিত নির্যাতন এবং নির্যাতনে গৃহবধূর গর্ভের সন্তান নষ্টের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় ৩ জুন আদালতে একটি নালিশী মামলা দায়ের করেন নির্যাতিতা গৃহবধূর স্বামী। এরপর নির্যাতনের একটি ভিডিও ভাইরাল হলে তোলপাড় শুরু হয়। এর প্রেক্ষিতে পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীমের দ্রুত পদক্ষেপে গত ১১ জুন এক সেনা সদস্যসহ ওই গৃহবধূর ৩ ভাসুর ও জাসহ ৯ জনকে স্ব-নামে ও অজ্ঞাতনামা আরও ৩/৪ জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা গ্রহণ করা হয়।
কেএ/ডিএ

জামালপুরসহ তিন জেলায় নতুন ডিসি | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকাশিত: ১০:০৬ অপরাহ্ণ, ২৫ আগস্ট ২০১৯

জামালপুরের পর এবার চুয়াডাঙ্গা ও খাগড়াছড়িতে নতুন জেলা প্রশাসক (ডিসি) নিয়োগ দিয়েছে সরকার।
আজ রবিবার (২৫ আগস্ট) জনপ্রশাসন থেকে এ সংক্রান্ত পৃথক পৃথক প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।
প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, পরিকল্পনামন্ত্রীর একান্ত সচিব (উপসচিব) মোহাম্মদ এনামুল হককে জামালপুরে, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপসচিব মো. নজরুল ইসলাম সরকার চুয়াডাঙ্গায় ও পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসকে খাগড়াছড়িতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।
এছাড়াও অন্য প্রজ্ঞাপনে, চুয়াডাঙ্গার জেলা প্রশাসক গোপাল চন্দ্র দাসকে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগে এবং খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক মো. শহীদুল ইসলামকে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব হিসেবে বদলি করা হয়।
উল্লেখ্য, এক নারী অফিস সহকারীর সঙ্গে আপত্তিকর ভিডিও প্রকাশের ঘটনায় জামালপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) আহমেদ কবীরকে ওএসডি করা হয়। তার বদলে সেখানে নতুন ডিসি নিয়োগ পেয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রীর একান্ত সচিব (উপসচিব) মোহাম্মদ এনামুল হক।
এআইআর/ডিএ

মোদীকে সম্মান, রাগে আমিরশাহী সফর বাতিল করল পাকিস্তান | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকাশিত: ১০:১৩ অপরাহ্ণ, ২৫ আগস্ট ২০১৯

ইসলামিক দেশে সম্মানিত হচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাও আবার ঠিক যখন কাশ্মীর নিয়ে উত্তেজনা তুঙ্গে, তার মধ্যেই। তাই এবার রাগের চোটে আমিরশাহ সফরই বাতিল করে বসলেন পাক সেনেটর।
সংযুক্ত আরব আমিরশাহীতে যাওয়ার কথা ছিল পাকিস্তানের সেনেট চেয়ারম্যান সাদিক সাঞ্জরানির। সেদেশের সরকারের আমন্ত্রণে রিববার থেকে বুধবার পর্যন্ত তিন দিনে সফরে যাওয়ার কথা ছিল পাকিস্তানি প্রতিনিধি দলের। সেখানে গিয়ে একাধিক সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক হওয়ার কথাও ছিল তাদের। কিন্তু কাশ্মীর নিয়ে ভারতকে সমর্থন করায় আমিরশাহী সফর বাতিল করল পাকিস্তান।
নরেন্দ্র মোদীর হাতে সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান ‘অর্ডার অব জায়েদ’ তুলে দিয়েছে সংযুক্ত আরব আমিরশাহী। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে বড় ভূমিকা রাখায় শনিবার মোদীকে এই বিশেষ সম্মান দেওয়া হয়েছে।
বর্তমানে বিদেশ সফরে রয়েছেন মোদী। আর সেই সফরেই সংযুক্ত আমিরশাহীতে তাঁর হাতে তুলে দেওয়া হল এই সম্মান। আগেই এই পুরস্কারের কথা ঘোষণা করেছিল আমিরশাহী।
দীর্ঘদিন ধরে আরব আমিরশাহীর সঙ্গে বন্ধুত্ব অটুট রাখার জন্যই দেওয়া হচ্ছে এই বিশেষ সম্মান। মোদীকে এই সম্মান প্রদান প্রসঙ্গে আরব আমিরশাহীর যুবরাজ শেখ মহম্মদ বিন জায়েদ আল নাহয়ান জানিয়েছিলেন, দুই দেশের সম্পর্কে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। এ খবর দিয়েছে ভারতীয় গণমাধ্যম কলকাতা২৪।
তাঁর কথায়, ভারত ও আরব আমিরশাহীর মধ্যে যে ঐতিহাসিক সম্পর্ক ছিল, তাকে নতুন মাত্রা দিয়েছেন মোদী। আগামিদিনে দুই দেশের সম্পর্কের ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল হয়, সেই ক্ষেত্রেও মোদী কাজ করেছেন বলে জানিয়েছেন যুবরাজ। ২০১৮ তে এই মেডাল দেওয়া হয়েছিল চিনের প্রেসিডেন্ট জিংপিং-কে।
এমআর/এনই

এবার সালমানের বিগ বসে যাচ্ছেন রানু মণ্ডল! | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকাশিত: ১০:১৪ অপরাহ্ণ, ২৫ আগস্ট ২০১৯

রানাঘাটের রেল স্টেশনের সেই ভিখারিনী রাণু মন্ডল এখন পরিচিত মুখ। ইতোমধ্যে সেলিব্রেটি বনে গেছেন। এখন তার সঙ্গে সেলফি তোলার জন্য ভিড় করে শত-শত মানুষ।
রানু মণ্ডল এবার যাচ্ছেন ‘বিগ বস’ এর ঘরে। একটি গান তার জীবন পাল্টে দেয়। বলিউডের সঙ্গীত পরিচালক হিমেশ রেশমিয়ার সুরে ‘প্লে ব্যাক’ এর পর এবার শোনা যাচ্ছে রানুকে দেখা যেতে পারে ‘বিগ বস’-এর ১৩তম সিজনে।
আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে জনপ্রিয় ও বিতর্কিত টেলি শো ‘বিগ বস’। যে শোয়ের সঞ্চলনার দায়িত্বে থাকেন বলিউডের ভাইজান। শোনা যাচ্ছে এবার বিগ বসের সিজন ১৩-র ঘরে যোগ দেওয়ার জন্য খোদ সালমানের ডাক পেয়েছেন রানাঘাটের রানু মণ্ডল। আর যদি এখবর সত্যি হয় তাহলে রানুর জীবনের যাত্রাপথ আরও একধাপ বদলে যেতে চলেছে। যদিও এবিষয়ে এখনও শোয়ের নির্মাতা থেকে কিছুই জানানো হয়নি। এবিষয়ে মুখ খোলেননি রানু মণ্ডলও। তবে কিছু নেটিজেনের দাবি, বিগ বসের ঘরে রানু ডাক পাওয়ার খবরটা নাকি এক্কেবারেই মিথ্যা।
প্রসঙ্গত, এবারে বিগ বস সিজন-১৩ প্রতিযোগীদের তালিকায় শোনা যাচ্ছে জারিন খান, রাজপাল যাদব, চাঙ্কি পান্ডে, হিমেশ কোহল, মহিমা চৌধুরী সহ একাধিক তারকার নাম। তাই এই তালিকায় যদি রানু মণ্ডলের নাম যুক্ত হয়, তাহলে শোয়ের ভোল বদলে যাবে বলেও মনে করছেন অনেকে।
সম্প্রতি হিমেশ রেশমিয়ার পরবর্তী ছবি ‘হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হীর’ ছবিতে প্লে ব্যাক করেছেন রানু মণ্ডল। হিমেশের সুরে ‘তেরি মেরি কাহানি’ গাইতে শোনা গিয়েছে তাঁকে। ‘লতাকণ্ঠি’-র প্রশংসাও করেছেন হিমেশ।
এআইআর/ডিএ

সাগরে লঘু চাপ, নতুন শঙ্কা জানাল আবহাওয়া অফিস | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকাশিত: ১০:১৮ অপরাহ্ণ, ২৫ আগস্ট ২০১৯

বৃষ্টিপাত বাড়ার আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। বাংলাদেশের ওপর মৌসুমি বায়ু মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি আকারে অবস্থান করায় এ আভাস দেয়া হয়েছে।
এক পূর্বাভাসে সংস্থাটি জানিয়েছে, উড়িষ্যা উপকূল ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত লঘুচাপটি মৌসুমি বায়ুর অক্ষের সঙ্গে মিলিত হয়েছে। মৌসুমি বায়ুর বর্ধিতাংশ, পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, বিহার, গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ অতিক্রম করে বাংলাদেশের দক্ষিণাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। যার একটি বর্ধিতাংশ বিস্তৃত রয়েছে উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত।
এ কারণে সোমবার সন্ধ্যা ৬টা নাগাদ খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।
সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে। ভারী বর্ষণের আভাস থাকলেও পাহাড় ধসের কোনো শঙ্কা দেখছে না আবহাওয়া অধিদফতর।
আগামী দু’দিন বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে ও আর পাঁচদিনে বৃষ্টিপাতের কার্যকারিতা বাড়বে।
এআইআর/ডিএ

বিরল রোগে আক্রান্ত তাসফিয়া | BD24Live.com | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকাশিত: ৯:৪৫ অপরাহ্ণ, ২৫ আগস্ট ২০১৯

বিরল রোগে আক্রান্ত দরিদ্র পরিবারে সাড়ে তিন বছরের শিশু কন্যা তাসফিয়া জাহান মুনিরা। তাসফিয়া চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার নাচোল উপজেলার গোডাউন পাড়ার মাসুদুজ্জামান মামুনের ছোট মেয়ে।
শিশু তাসফিয়া জন্মের পর থেকেই তার শরীরের লম্বা লম্বা পশম দেখা যায়। দিন যতই গড়াচ্ছে পশমগুলিও বাড়তে বাড়তে পশুর মতো দেখা যাচ্ছে। শিশু তাসফিয়ার শরীরের পিঠের ছোট্ট একটি টিউমার থেকে এটির উৎপত্তি বলে তাসফিয়ার মা তানজিলা খাতুন জানান।
তিনি জানান, যখন তাসফিয়ার বয়স ৬ দিন, তখন থেকেই পশম লক্ষ্য করা যায়। এরপর রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয়। তখন হাসপাতালের চিকিৎসকদের গঠিত মেডিকেল বোর্ড এটিকে বিরল চর্ম রোগ বলে শনাক্ত করেন। তখন তাসফিয়ার বয়স ৩-৪ বছর হলে উন্নত চিকিৎসার পরামর্শ দেয়া হয়। বর্তমানে তার বয়স সাড়ে তিন বছর।
তিনি আরও জানান, গরমের দিনে ওই শিশুর শরীর থেকে আগুনের মতো তাপ বের হতে থাকে। দিনে ২-৩ বার গোসল করাতে হয়। দিনরাত ফ্যানের নিচে রাখতে হয়। বিদ্যুৎ না থাকলে হাত পাখা দিয়ে বাতাস করতে হয়।
ডাক্তাররা বাচ্চাটিকে চিকিৎসার জন্য ভারতে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে রাজমিস্ত্রী বাবার পক্ষে শিশু তাসফিয়ার উন্নত চিকিৎসা করানো সম্ভব না। তাই বর্তমানে তার হোমিও চিকিৎসা চলছে।
তাসফিয়ার উন্নত চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের কাছে সাহায্য চেয়েছে তার বাবা-মা।
তাসফিয়ার বাবা স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের জানান, সরকারিভাবে এবং সমাজের বিত্তবানদের কাছ থেকে আর্থিক সহযোগিতা পেলে তিনি ভারতে গিয়ে চিকিৎসা করাবেন মেয়ের।
এআইআর/ডিএ

সোমবার দিনটি যেমন কাটবে আপনার | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকাশিত: ৯:৪৯ অপরাহ্ণ, ২৫ আগস্ট ২০১৯

আজ আপনার জন্ম হলে পাশ্চাত্য মতে আপনি কন্যা রাশির জাতক জাতিকা। আপনার ওপর প্রভাবকারী গ্রহ: বুধ ও শনি। ২৬ তারিখে জন্ম হবার কারণে আপনার উপর শনির প্রভাব প্রবল। আপনার শুভ সংখ্যা: ৮, ১৭, ২৬। শুভ বর্ণ: নীল ও সবুজ। শুভ বার ও গ্রহ: শনি ও বুধ। শুভ রত্ন: পান্না ও নীলা।
আজকের দিনে জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত ব্যক্তিরা হলেন: মানবতার জননী মাদার তেরেসা, চিত্র পরিচালক মধুর ভান্ডারকার, মেনকা গান্ধী প্রমুখ।
আজকের দিনের শুভ রং: আজ আপনার জন্য নীল ও সবুজ রং শুভ ফল বয়ে আনতে পারে।
জ্যোতিষ শাস্ত্রানুসারে আজকের দিনের শুভ সময়: সকাল: ১০:৫০- ১:১৭, বিকাল: ৩:৪৪-৫:২৩ রাত: ৭:০০ থেকে ৯:২০ পর্যন্ত।
চন্দ্রের অবস্থান: আজ চন্দ্র মিথুন রাশিতে অবস্থান করবে। ১১শী তিথি রাত: ১:১৬ পর্যন্ত, পরে ১২শী তিথি চলবে।
আজকের দিনের পরিত্যজ্য খাদ্য: শিম।
মেষ রাশি (২১মার্চ – ২০এপ্রিল): আজ মেষ রাশির জাতক জাতিকার দিনটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। ছোট ভাই বোনের সাথে কোনো কারণে মনমালিণ্য হতে পারে। সাংবাদিক ও প্রকাশকদের একটু সতর্ক হয়ে চলাফেরা করা উচিত। প্রতিবেশীর সাথে কোনো বিষয়ে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে যেতে পারেন। অনলাইনে কোনো অনভিপ্রেত সমস্যার সম্মূখীন হওয়ার আশঙ্কা প্রবল।
বৃষ রাশি (২১ এপ্রিল – ২০ মে): বৃষ রাশির জাতক জাতিকার দিনটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। ব্যবসা ক্ষেত্রে ঝামেলা দেখা দেবে। আর্থিক প্রাপ্তিতে বাধা বিপত্তি দেখা দিতে পারে। বাড়িতে আত্মীয় স্বজনের আগমন হবে। হোটেল মোটেল ও রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ীরা আশানুরুপ আয় করতে পারবেন না। খুচরা ও পাইকারী বেচাকেনায় কিছু ক্ষতির আশঙ্কা দেখা দেবে। বিদেশ থেকে ধন লাভের যোগ।
মিথুন রাশি (২১ মে – ২০ জুন): মিথুন রাশির জাতক জাতিকার দিনটি ঝামেলাপূর্ণ থাকবে। চাকরিজীবী ও ব্যবসায়ীরা আজ মানসিক ভাবে কিছুটা অস্থির থাকতে পারেন। শরীর স্বাস্থ্য ও মন মেজাজ বিগড়ে যেতে পারে। স্ত্রীর সাথে ভুল বোঝাবুঝি এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন। অংশিদারী কাজে কোনো অংশিদারের দ্বারা আর্থিক ভাবে প্রতারিত হতে হবে।
কর্কট রাশি (২১ জুন – ২০ জুলাই): কর্কট রাশির জাতক জাতিকার দিনটি কিছুটা ঝামেলার। আইনগত জটিলতায় জড়িয়ে যেতে পারেন। ট্যাক্স ও ভ্যাট সংক্রান্ত ঝামেলা দেখা দেবে। ট্রেড লাইসেন্স সংক্রান্ত ঝামেলার তড়িত সমাধান আশা না করাই ভালো। ট্রান্সপোর্ট ব্যবসায়ীদের যান্ত্রিক গোলোযোগে ভোগার আশঙ্কা প্রবল। প্রবাসীরা কোন ভিসা বা আকামা জটিলতায় ভুগতে পারেন।
সিংহ রাশি (২১জুলাই – ২১ আগস্ট): সিংহর জাতক জাতিকাদের দিনটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। চাকরীজীবী ও ব্যবসায়ীরা বকেয়া টাকা তুলতে গিয়ে কিছুটা হয়রাণির সম্মূখীন হতে পারেন। বড় ভাই এর সাথে সাংসারিক বিষয়ে উত্যপ্ত বাক্য বিনিময় হতে পারে। ঠিকাদারী কাজে রাজনৈতিক বাধা বিপত্তির আশঙ্কা প্রবল। বন্ধুর কোনো প্রকার সাহায্য প্রয়োজন হতে পারে।
কন্যা রাশি (২২ আগস্ট – ২২ সেপ্টেম্বর): কন্যা রাশির জাতক জাতিকার দিনটি ভালো যাবে না। চাকরীজীবীদের কাজের ক্ষেত্রে গোলমাল দেখা দেবে। ব্যবসায়ীক কাজে কোনো প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তির দ্বারা বাধা বিপত্তির আশঙ্কা প্রবল। পদস্ত কর্মকর্তার সাথে বুঝেশুনে কথা বলুন। রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের কোনো অপবাদে জড়িয়ে যাওয়ার আশঙ্কা।
তুলা রাশি (২৩ সেপ্টেম্বর-২১ অক্টোবর): তুলা রাশির জাতক জাতিকার ভাগ্য উন্নতিতে বাধা বিপত্তি দেখা দেবে। উচ্চ শিক্ষায় বিদেশ সংক্রান্ত বিষয়ে কিছু সাফল্য আশা করতে পারেন। ধর্মীয় কাজে দূরের যাত্রার সুযোগ আসবে। তবে পিতার শরীর স্বাস্থ্য ভালো নাও যেতে পারে। আমদানী রপ্তাণী ব্যবসায়ীরা কাস্টমস সংক্রান্ত জটিলতায় ভুগতে পারেন।
বৃশ্চিক রাশি (২২ অক্টোবর- ২০ নভেম্বর): বৃশ্চিক রাশির জাতক জাতিকার দিনটি সতর্কতার। আজ কোনো বড় ধরনের সমস্যায় জড়িয়ে যেতে পারেন। শেয়ার ব্যবসায়ীরা একটু সতর্ক থাকবেন। পাওনাদারের টাকার তাগাদা বৃদ্ধি পাবে। ব্যাংক ঋণ সংক্রান্ত কোনো বিষয়ে আইনগত জটিলতার উদ্ভব হতে পারে। চিকিৎসক ও রাসায়নিক দ্রব্য ব্যবসায়ীরা ভালো আয় করতে পারবেন।
ধনু রাশি (২১ নভেম্বর – ২০ ডিসেম্বর): ধনু রাশির জাতক জাতিকার দিনটি ভালো যাবে না। জীবন সাথীর শরীর কিছুটা খারাপ যেতে পারে। দাম্পত্য কলহের আশঙ্কা প্রবল। অংশিদারী ও যৌথ মালিকানা ব্যবসায় আশানুরুপ লাভ হবে না। আজ আপনার কর্ম ক্ষেত্রে বারবার ভুল বোঝাবুঝির শিকার হতে পারেন। বয়স্কদের শারীক সমস্যা বৃদ্ধি পাবে।
মকর রাশি (২১ ডিসেম্বর – ২০ জানুয়ারি): মকর রাশির জাতক জাতিকার দিনটি কর্মস্থলে ঝামেলার। সহকর্মীদের সাথে কোনো অফিশিয়াল বিষয়ে ঝামেলা দেখা দেবে। অধিনস্ত কর্মচারীর কোনো বিপদে এগিয়ে যেতে হবে। ব্যবসায়ীক ক্ষেত্রে কিছু উটকো ঝামেলা পোহাতে হবে। আপনার কোনো পুরোনো অপকর্মের জন্য আতঙ্কিত থাকতে পারেন।
কুম্ভ রাশি (২১ জানুয়ারি – ১৮ ফেব্রুয়ারি): কুম্ভ রাশির রাশির জাতক জাতিকাদের দিনটি ভালো যাবে না। সন্তানের সাথে কোনো কারনে মনমালিণ্য হওয়ার আশঙ্কা। বিদ্যার্থীদের পড়াশোনায় মন বশবে না। রোমান্টিক বিষয়ে বেশি সিরিয়াস হওয়াতে পড়াশোনায় বাধা। শিল্পী ও কলাকুশলীরা কাজের সূত্রে বিদেশ যেতে পারেন।
মীন রাশি (১৯ ফেব্রুয়ারী – ২০ মার্চ): মীন রাশির জাতক জাতিকার দিনটি পারিবারিক অশান্তির। একটু সতর্ক হয়ে চলার চেষ্টা করুন। কোনো আত্মীয়র সাথে অকারনেই দ্বন্দ্ব দেখা দেবে। যানবাহন হারিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা প্রবল। গৃহস্থালী কাজে কিছু যান্ত্রিক যন্ত্রনার সম্মূখীন হতে পারেন। কাজের লোকের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা।
এমআর/এনই

ক্রিকেটারদের চুক্তির মেয়াদ কমাচ্ছে বিসিবি | সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার: প্রকাশিত: ৯:৫৭ অপরাহ্ণ, ২৫ আগস্ট ২০১৯

ক্রিকেটারদের সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ ১ বছর থেকে কমিয়ে ছয় মাস করার কথা ভাবছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। গত বিশ্বকাপ ও শ্রীলঙ্কা সফরে দলের পারফরম্যান্স বিচার করেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে।
এর আগে বোর্ডের সঙ্গে কেন্দ্রীয় চুক্তির আওতায় থাকা ক্রিকেটারের সংখ্যাও কমানো হয়েছে। তালিকাটা ১৬জন থেকে ২০১৮ সালে নামিয়ে দশে আনা হয়। তবে চুক্তির মেয়াদ কমানোর বিষয়টি এখনও নিশ্চিত হয়নি বলে জানিয়েছেন ক্রিকেট অপারেশন্সের চেয়ারম্যান আকরাম খান।
তিনি ক্রীড়া বিষয়ক সংবাদ মাধ্যম ক্রিকবাজকে বলেন, ‘এটা এখনও নতুন নিয়ম নয়। নিয়ম হলে, আমরা চাইলে চুক্তির আওতায় নতুন ক্রিকেটার আনতে পারবো। আবার শৃঙ্খলা ভঙ্গ বা পারফরম্যান্সের কারণে কেউ চুক্তি থেকে বাদও পড়তে পারে। এবার আমাদের চিন্তা-ভাবনা সেরকমই।’
আকরাম জানান, মূলত পারফরম্যান্সের ওপর ভিত্তি করেই কেন্দ্রীয় চুক্তির মেয়াদ কমানোর কথা ভাবা হচ্ছে এবং এতে খেলোয়াড়দের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়বে না বলেই মত তার।
আকরাম খান বলেন, ‘পারফরম্যান্স একটা বড় বিষয়। আর আমরা নতুন খেলোয়াড়দের যুক্তও করতে পারি আবার যারা ভালো করছে না তাদের সরিয়েও দিতে পারি। পারফর্ম করা এবং শৃঙ্খলা বজায় রাখা খুব জরুরী। আমরা সবকিছু নিয়েই ভাবছি।’
‘চুক্তিটা এক বছরের, কিন্তু ছয় মাস পর যে কাউকে আমরা নতুন করে যুক্ত করতে কিংবা বাদ দিতে পারি। এটা নতুন কিছু নয়। জুনের পর হয়তো ছয় মাসে বেশি হবে, এটা আমাদের সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করছে। এমন নয় যে, আমাদের ছয় মাসের নিয়ম মানতেই হবে। ফলে যে কোনো সময় আমরা এটা করতে পারি।’
‘এটা বাড়তি চাপ নয় মোটেই। যারা ভালো করছে…অনেক খেলোয়াড়ের ভিড়ে ১২-১৩ জন আছে আছে মূল প্রতিযোগিতায়। ফলে আমরা সেরা পারফরম্যান্স দেখানো খেলোয়াড়দের রাখবো। অনেক সময় দেখা যায়, বোর্ড অনেক খরচ করছে এবং যথেষ্ট সুযোগ দিচ্ছে কিন্তু আমরা যেমনটা চাই তেমন ফল পাই না এবং এটা আমাদের ক্রিকেটের জন্য ভালো নয়।’
গত বছর কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা খেলোয়াড়দের বেতন বাড়িয়েছে। বর্তমানে ‘এ প্লাস’ ক্যাটাগরির একজন খেলোয়াড় পাচ্ছেন প্রতি মাসে ৪ লাখ টাকা, ‘এ’ ক্যাটাগরির খেলোয়াড়রা পাচ্ছেন ৩ লাখ টাকা, ‘বি’ ক্যাটাগরির খেলোয়াড়রা ২ লাখ টাকা, ‘সি’ ক্যাটাগরির খেলোয়াড়রা দেড় লাখ টাকা আর ‘ডি’ ক্যাটাগরির খেলোয়াড়দের বেতন ১ লাখ টাকা।
বিসিবি’র শর্টলিস্টে থাকা ক্রিকেটার: মুশফিকুর রহিম, সাকিব আল হাসান, মাশরাফি মর্তুজা, তামিম ইকবাল, মাহমুদুল্লাহ, মুমিনুল হক, রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, তাইজুল ইসলাম এবং মেহেদি মিরাজ।
এআইআর/ডিএ