নদী থেকে এক নারীর লাশ ও দুই শিশুকে জীবিত উদ্ধার

স্টাফ রিপোর্টার: জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় যমুনা নদীতে নৌকাডুবির ঘটনায় নিখোঁজ ছয় জনের মধ্যে রেজিয়া খাতুন (৪৫) নামের এক নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এই ঘটনায় নিখোঁজ দুই শিশু নয়ন (১১) ও মমতাকে (৭) বগুড়ায় পৃথক স্থান থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। এদিকে যমুনা নদীতে প্রচণ্ড বাতাস আর তীব্র ঢেউয়ের কারণে ফায়ার সার্ভিস উদ্ধার কাজ বন্ধ রেখেছে।

রেজিয়া খাতুন হলকারচর গ্রামের মৃত মজিবর রহমানের স্ত্রী। দেওয়ানগঞ্জ থানার চুকাইবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সেলিম খান জানান, নিখোঁজ রেজিয়া খাতুনের মৃতদেহ সিরাজগঞ্জ জেলার পাতিলদহ চর থেকে উদ্ধার করেছেন তার স্বজনেরা। নিখোঁজদের উদ্ধারকাজে নিয়োজিত স্থানীয় ইউপি মেম্বার কালাম মৃতের পরিচয় নিশ্চিত করেছেন। শুক্রবার বিকালেও নিখোঁজদের সন্ধানে স্বজনেরা বিভিন্ন স্থানে ছুটে বেড়িয়েছেন।

এদিকে গত বৃস্পতিবার বগুড়ার সারিয়াকান্দির যমুনা নদী থেকে নয়ন (১১) নামে এক শিশুকে উদ্ধার করা হয়। রুস্তম আলী নামে এক কৃষক তাকে কাজলা ইউনিয়নের কুড়িপাড়া চর থেকে উদ্ধার করেন। একইদিন ভোরে পারভীন বেগম নামে এক গৃহবধু চন্দনবাইশার শেখপাড়া থেকে মমতা (৭) নামে শিশুকে উদ্ধার করেন। শুক্রবার দুপুরে সারিয়াকান্দি থানা পুলিশ তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে। ওসি আল আমিন এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জের চর হলকা গ্রামের ময়েন উদ্দিনের স্ত্রী ফিরোজা বেগম জানান, তার মেয়ে মমতা স্থানীয় হাবরাবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণিতে পড়ে। তারা ত্রাণ নিয়ে নৌকায় চর হলকা গ্রামের বাড়িতে ফিরছিলেন। খারাপ আবহাওয়ায় মাঝ নদীতে নৌকা ডুবে যায়। মমতা ও অন্যরাসহ তিনিও ডুবে যান। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করেন। আর মেয়ে মমতা নদীতে ভেসে বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে চলে আসে।

গাইবান্ধার পলাশবাড়ি উপজেলার বেদকাবা গ্রামের শাহানুরের ছেলে নয়ন জানায়, সে তার বড় ভাই সেলিমের শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে গিয়ে ত্রাণ নিয়ে ফেরার সময় নৌকা ডুবে গিয়েছিল। সে সারারাত ভাসতে ভাসতে বৃহস্পতিবার ভোরে বগুড়ার সারিয়াকান্দির কুড়িপাড়া চরে যমুনা নদীর তীরে আসে। সেখানে থেকে এক ব্যক্তি তাকে উদ্ধার করেছেন।

সারিয়াকান্দি থানার ওসি আল আমিন জানান, শুক্রবার দুপুরে মমতাকে তার মায়ের কাছে ও নয়নকে তার ভাইয়ের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। নদীতে ডুবে যাওয়া ওই শিশুকে ফিরে পেয়ে স্বজনরা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

উল্লেখ্য, ঈদ উপলক্ষে বিতরণ করা ভিজিএফের চাল নিয়ে গত বুধবার রাত ৮টার দিকে ফুটানি বাজার ঘাট থেকে চর হলকা হাওড়াবাড়ীর দিকে রওনা হন ২৮ থেকে ৩০ জন। পথে যমুনা নদীর মাঝে প্রবল বাতাস ও স্রোতে নৌকাটি ডুবে যায়। এ ঘটনায় ২৬ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হই
সূত্র বাংলা ট্রিবিউন